1.This is due to either i) Oncogens or ii)Infection Of Some Tissues By Virus / Other Microbes or iii) long-standing Irritation /Excitation on cells made by us. //এটা  ঘটে হয় ১) অঙ্কোজিন  দ্বারা, বা  ২)কোনও অঙ্গে বিশেষ ভাইরাস বা অন্য কোনও মাইক্রোব  দ্বারা  দূষণের পর ,বা ৩)কোনও কলা-কোষে দীর্ঘকালীন উত্তেজনার কারণে ৷

A)Oncogenes are those specific genes that are responsible for hereditary Cancers. Number of such genes are very limited, so also such cancers; and their prevention is extremely difficult. So, these are not our headache.//অঙ্কোজিন  হল এক ধরণের জিন যা বংশানুক্রমিক  ক্যানসার সৃষ্টি করে ৷ এ ধরণের জিনের সংখ্যা  ও ক্যানসারের  সংখ্যা খুবই সীমিত ৷  এদের প্রতিরোধ প্রায় অসাধ্য ৷  তাই এ বিষয় আমাদের চর্চার  নয় ৷

B)Again, it has been noted that liver tissues after infection of certain types of virus like Hepatitis-A or -B becomes very much vulnerable to be attacked with carcinogenic changes. For these types of Cancer, specific inoculations/vaccines are available which give considerable protection if taken in due time; but their number is also very limited. //আবার এটাও দেখা গেছে যে, লিভার হেপাটাইটিস-এ বা -বি ভাইরাস  দ্বারা আক্রমণের পর  সহজেই ক্যানসারে আক্রান্ত হয় ৷ এদের প্রতিরোধের জন্যে বিশেষ টিকা পাওয়া যায়; যথা  সময়ে টিকা নিলে যথেষ্ট প্রতিরোধ করা  যায় ৷ তবে এ জাতীয় ক্যানসারের সংখ্যাও খুব সীমিত ৷

C)But about 90% of  Cancers which are modifiable or preventable are caused by  IRRITATION to cells of a tissue perpetrated by us knowingly or unknowingly. As a result, they change their characters and functionality. These are subjects of our extensive consideration. //কিন্তু ক্যানসারের ৯০% প্রতিরোধযোগ্য , যা সৃ্ষ্টি হয়  জেনে বা না জেনে আমাদের দ্বারা  কৃত কোন কলা-কোষের ওপর  দীর্ঘকালীন উত্তেজনা  থেকে ৷   

2.IRRITATION generally occurs in four different ways: i)Physically/mechanically, ii) Chemically, iii) By rays/energy & iv) Psychically/mentally.//উত্তেজনা ৪ উপায়ে  ঘটে থাকে: ১)ভৌত উপায়ে ২)রাসায়নিক ভাবে ৩) রশ্মি বা কোন শক্তি দ্বারা ৪)মানসিক ভাবে

3.Possibly you might have heard that a person gets CANCER of gum from a broken tooth. What happens, the tooth uses to hurt the gum for a long time. The man simply does not pay attention. Ultimately, the cells of affected tissue undergo malignant change. In this case, mechanical irritation causes CANCER of gum//সম্ভবত: অাপনারা শুনে থাকবেন যে, কোনও ব্যক্তি ভাঙা দাঁত থেকে ক্যানসারে ভুগছেন ৷  ঘটনাটা ঘটেছে এ ভাবে, ভাঙা দাঁত দীর্ঘদিন ধরে মাড়িতে আঘাত করে গেছে, ঐ ব্যক্তি ব্যাপারটা ধর্তব্যের মধ্যেই আনেন নি ৷ শেষমেষ, মাড়ির কোষে দীর্ঘদিন উত্তেজনার প্রভাবে ক্যানসার সৃ্ষ্টি হয়েছে৷  .

4.There are numerous materials which enter our body through foods, drinks or otherwise and cause  chemical irritation of DNAs of the cells thereby causing malignant changes therein. These are commonly known as CARCINOGENS or cancer producing agents. Not all carcinogens have been identified. We have discussed about these under head ‘ What are Carcinogens?’. Very common carcinogens are saccharine, triclosan, dyes manufactured from coal tar, hidden chemicals in canned foods/drinks, cigarettes etc. Triclosan is extensively used in soaps/toothpaste for its antibacterial quality but it is a potent carcinogen. If you wash hands or brush teeth with a soap or paste containing triclosan, you may be free from bacterial infection but you would run a high risk for cancer! Please, carefully check the contents of soap / tooth-paste before use. //খাদ্য, পানীয় ও প্রশ্বাসের মাধ্যমে এমন অনেক পদার্থ  আমাদের শরীরের  ভেতরে প্রবেশ করে যারা আমাদের দেহের সুস্থ কোশের মধ্যে  ঢুকে ডি-এন-এর পরিবর্তন ঘটিয়ে মারাত্মক ধরণের পরিবর্তন আনতে পারে ৷ সাধারণভাবে এদের বলা হয় কার্সিনোজেন বা ক্যানসার সৃ্ষ্টিকারী পদার্থ ৷ সমস্ত  কার্সিনোজেন এখনও আবিষ্কৃত হয় নি ৷  “কার্সিনোজেন  কী?” শীর্ষক লেখায় এ সম্পর্কে আলোচনা করা হয়েছে ৷ স্যাকারিন, ট্রাইক্লোসান, আলকাতরা থেকে উৎপন্ন নানা কৃত্রিম রঙ, কৌটোয়/প্যাকেটে/বোতলে রাখা বিভিন্ন খাদ্য, পানীয় মিশে থাকা রাসায়নিক পদার্থ, সিগারেট ইত্যাদির  মধ্যে এরা উপস্থিত ৷ ট্রাইক্লোসান একটি উত্তম বীজাণুনাশক রাসায়নিক কিন্তু  একটি মার্কড কার্সিনোজেন  যা টুথপেস্ট, হাত ধোওয়ার সাবান, বাসন মাজার সাবান ইত্যাদিতে আকছার ব্যবহার হয় ৷  এটি ব্যবহার করলে বীজাণুর হাত থেকে বাঁচা যাবে কিন্তু দীর্ঘদিন ব্যবহার করলে ক্যানসারের সম্ভাবনা থাকে ৷ প্লীজ হাত ধোওয়ার সাবান, টুথ পেস্ট ইত্যাদির ওপর লেখা উপকরণগুলো চেক করে দেখুন ৷
5.You might have heard that persons working with radioactive substances suffers from CANCER. Prolonged exposure to sun-rays also cause facial CANCER of particularly intensely white-complexioned persons. That is why, you notice cricketers using white zinc oxide on their cheeks and nose during hard sunny days.

“Kangri” cancer of Kashmiris and “Chutta” cancer of aborigines of Godavari basin are caused by irritation due to heat.  //আপনারা শুনে থাকবেন যে, তেজষ্ক্রিয় পদার্থ নিয়ে যারা কাজ-কর্ম করেন তাদের অনেকে ক্যানসারে আক্রান্ত হয় ৷   সাদা চামড়ার মানুষদের  মুখে দীর্ঘ সময় ধরে রোদ্দুর  পড়লে , মুখ-মন্ডলের ক্যানসার হতে দেখা গেছে ৷ তাই,  দেখা যায়, প্রচন্ড কড়া রোদে ক্রিকেটাররা গাল  ও নাকের ওপর জিংক অক্সাইড  মেখে খেলেন ৷    কাশ্মীরীদের পেটের চামড়ার  ‘কাঙরী ক্যানসার’ আর  গোদাবরী অঞ্চলের আদিবাসীদের মুখের ভিতরের  ‘চুট্টা ক্যানসার’  তাপীয় উত্তেজনাজনিত ক্যানসার ৷                                                                            

      

6.CANCER caused by Psychical irritation would be described in details. Please read the article :Psychic causes of Cancer .       //মনস্তাত্বিক  উত্তেজনা জনিত কারণে ক্যানসার সৃ্ষ্টি বিশদভাবে আলোচিত হবে –‘ক্যানসারের  মনস্তাত্বিক কারণ ‘ শীর্ষক লেখায় ৷